You are currently viewing ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরি হয়? ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সিরিজের আজকের পর্বে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে একটি ওয়েব সাইট তৈরি হয়? ওয়েব সাইট তৈরি করতে হাতুরি লাগে নাকি কুড়াল লাগে? ওয়েব সাইট কিভাবে তৈরি হয় তাঁর চৌদ্দ গোষ্ঠী উদ্ধার করার চেষ্টা করবো এই পর্বে – তো চলুন আজাইরা প্যাচাল বাদ দিয়ে ঝাপিয়ে পড়া যাক।

ওয়েবসাইট কিভাবে তৈরি হয়? 

মূলত একটি ওয়েব সাইট তৈরি করতে গেলে অনেক গুলো ধাপ অনুসরণ করতে হয়। ওয়েব সাইট তৈরি করার প্রধান দুটি ধাপ হলো ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভেলোপমেন্ট । ওয়েব ডিজাইন এবং ওয়েব ডেভেলোপমেন্ট দুইটা এক জিনিস নয়। আমরা আমাদের এই ওয়েব ডেভেলোপমেন্ট সিরিজে ওয়েব ডিজাইন নিয়ে খুব বেশি বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করবো না শুধু ব্যাসিক ধারণা কভার করবো। আমাদের এই সিরিজের মূল আলোচ্য বিষয় ওয়েব ডেভেলোপমেন্ট । 

মনে করুন, রহিম একজন সাধারণ মানুষ। আর ১০ টা সাধারণ মানুষের মতো সেও টুকিটাকি ফেসবুকিং এবং ইন্টারন্টে ব্রাউজিং করতে জানে । আইটি সেক্টরে খুব বেশি জ্ঞান তাঁর নেই। হঠাৎ করেই রহিমের একটা ওয়েব সাইটের প্রয়োজন পড়লো । কিন্তু রহিম তো জানে না কিভাবে ওয়েব সাইট তৈরি করা হয়, এই বিষয়ে তাঁর তেমন কোন জ্ঞান নেই, তাহলে রহিম এখন কি করবে? 

যেহুতু রহিম জানেনা কিভাবে একটি ওয়েব সাইট তৈরি করা হয় তাই রহিম কে সরানাপন্ন হতে হবে একজন আইটি এক্সপার্টের কাছে। তো কথা মতো রহিম চলে গেল একজন আইটি এক্সপার্টের কাছে। 

আইটি এক্সপার্ট এর সাথে রহিমের কথোপকথন:

রহিম: ভাই আমি একটি ওয়েব সাইট বানাবো কিন্তু জানিনা কিভাবে ওয়েব সাইট তৈরি করতে হয়। আপনি কি বিষয়টা আমাকে বুঝিয়ে বলবেন?

আইটি এক্সপার্ট: হ্যাঁ অবশ্যই। দেখুন একটি ওয়েব সাইট তৈরি করতে আপনাকে তিন জন লোকের সরানাপন্ন হতে হবে। গ্রাফিক্স ডিজাইনার, ওয়েব ডিজাইনার এবং সর্বশেষ ওয়েব ডেভেলোপার অথবা সাকিব আল হাসানের মতো অল-রাইন্ডার কারো কাছে যেতে হবে যে, একাই সব কাজ করে দিতে পারবে।

রহিম: তাঁদের কাছে গিয়ে তাঁরপর কি করবো?

আইটি এক্সপার্ট: প্রথমেই যাবেন একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনারের কাছে, তাঁর কাছে গিয়ে তাকে বিস্তারিত ভাবে বুঝিয়ে বলবেন কি ধরণের ওয়েব সাইট তৈরি করতে চান? কিসের জন্য তৈরি করতে চান? কি কি ইনফরমেশন থাকবে? কেমন খরচে তৈরি করতে চান? ওয়েব সাইটের কেমন ডিজাইন চাচ্ছেন ইত্যাদি আপনার কি কি প্রয়োজন তা সব কিছু ডিজাইনার কে বুঝিয়ে বলবেন। 

রহিম: তারপর কি করবো?

আইটি এক্সপার্ট: আপাতত আপনার আর কিছু করার নেই ডিজাইনারের কাছে গিয়ে ডিজাইন করে নিয়ে তাঁরপর আমার কাছে আসুন।

রহিম: আচ্ছা অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। আমি ডিজাইন করিয়ে নিয়ে তাঁরপর আপনার সাথে দেখা করছি।

তো আইটি এক্সপার্টের কথা মতো রহিম চলে গেল গ্রাফিক্স ডিজাইনারের কাছে, গিয়ে তাকে সব কিছু বিস্তারিত বললো এবং ডিজাইনার তাঁর কথা মতো একটি ডিজাইন দাঁড় করিয়ে রহিম কে দিলো। তাঁরপর রহিম আবার চলে গেল আইটি এক্সপার্ট ভাইয়ার কাছে।

রহিম: আমি ডিজাইনারের কাছে থেকে ডিজাইন করে নিয়ে এসেছি এখন আমাকে কি করতে হবে বলুন?

আইটি এক্সপার্ট: আচ্ছা আপনার ডিজাইন রেডি তাঁর মানে আপনার প্রায় ২৫-৩০% কাজ শেষ। এখন আপনার যেতে হবে একজন ওয়েব ডিজাইনারের কাছে অথবা কোন ফুল স্ট্যাক ডেভেলোপাররের কাছে।

রহিম: তারপর?

আইটি এক্সপার্ট: ওয়েব ডিজাইনারের কাছে গিয়ে আপনার ডিজাইন টা দেখাবেন, ডিজাইনার সেই ডিজাইনটাকে পিএসডি টু এইচটিএমএল এ কনভার্ট করে একটা টেমপ্লেট বানিয়ে দিবে।

রহিম: তারপর কি করতে হবে?

আইটি এক্সপার্ট: তাঁরপর ওয়েব ডিজাইনারের কাজ শেষ হলে আপনার ওয়েবসাইটের প্রায় ৪০-৫০% কাজ সম্পন্ন।

রহিম: এতটুকুই করলেই হবে?

আইটি এক্সপার্ট: না, এরপর আপনাকে ডোমেইন, হোস্টিং কিনতে হবে।

রহিম: ডোমেইন হোস্টিং আবার কি?

আইটি এক্সপার্ট: ডোমেইন হচ্ছে আপনার ওয়েব সাইটের নাম, যেই নাম সার্চ করে ভিজিটর আপনার ওয়েব সাইটে প্রবেশ করবে। আর হোস্টিং কে বলতে পারেন আপনার মোবাইলের মেমরি কার্ড অথবা কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কের মতো। পাথ্যর্ক শুধু এতটুকুই মেমরি কার্ডে বা হার্ড ডিস্কে আপনার ইচ্ছা মতো সব ধরণের ফাইল রাখতে পারবেন, কিন্তু ওয়েব সাইটের জন্য যেই হোস্টিং কিনবেন তাতে শুধু আপনার ওয়েব সাইটের ফাইল থাকবে এবং ফাইলগুলো ২৪ ঘণ্টা ৩৬৫ দিন পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে এক্সসেস করতে পারবেন।

রহিম: ডোমেইন হোস্টিং কোথায় থেকে কিনব?

আইটি এক্সপার্ট: কয়েক বছর আগেও ডোমেইন, হোস্টিং কিনতে হতো শুধু বিদেশী কোন কোম্পানি থেকে কেননা বাংলাদেশে তেমন ভালো মানের প্রতিষ্ঠান ছিলো না, কিন্তু এখন বর্তমানে বাংলাদেশেই তৈরি হয়েছে কিছু ভালো মানের ডোমেইন, হোস্টিং প্রতিষ্ঠান তাঁদের কাছে থেকে কিনতে পারেন কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই।

রহিম: বিদেশি কোম্পানি আর বাংলাদেশি কোম্পানীর মাঝে পার্থক্য কি?

আইটি এক্সপার্ট: পার্থক্য বলতে তেমন কিছুই নেই, শুধু এতটুকুই যে বিদেশী কোম্পানি থেকে কিনলে হয়তো একটু কম দামে পাবেন কারণ বিদেশী কোম্পানিগুলোর গ্রাহক সংখ্যা বেশি যার কারণে তাঁরা অল্প দামে বিক্রি করলেও বিক্রির পরিমাণ বেশি থাকার কারণে কোন লস নেই প্রফিট বেশি। আর বাংলাদেশী কোম্পানীর থেকে কিনলে হয়তো কিছু কিছু ক্ষেত্রে দাম সামান্য বেশি হতে পারে তবে খুব বেশি না। এক সময় বাংলাদেশী কোম্পানিগুলোর ডোমেইন হোস্টিং এর দাম কমে আসবে কেননা যত বেশি গ্রাহক হবে কোম্পানি তত বড় হবে এতে করে তাঁরাও স্বল্প মূল্যে ডোমেইন, হোস্টিং দিতে পারবে। 

এছাড়া বিদেশী কোম্পানী থেকে ডোমেইন,হোস্টিং নিলে কাস্টোমার সাপোর্ট দ্রুত পাবেন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশী কোম্পানী গুলোও এখন খুব ভালো মানের কাস্টোর্মার সার্ভিস দিয়ে থাকে। 

বিদেশী কোম্পানীর থেকে ডোমেইন হোস্টিং নিলে তাঁদের সাথে ইংরেজীতে কথা বলতে হবে এবং সেই সাথে ক্রয় করার সময় ইন্টারন্যাশনাল অথবা ডুয়েল কারেন্সি সাপোর্ট করে এমন পেমেন্ট সিস্টেম থাকতে হবে যা খুবই ঝামেলাকর। 

কিন্তু বাংলাদেশী কোম্পানীর থেকে ক্রয় করলে তাঁদের সাথে নিজ মাতৃ ভাষায় কথা বলতে পারবেন যার ফলে আপনার যে কোন সমস্যা বা চাহিদার কথা খুব সহজেই তাঁদের কাছে তুলে ধরতে পারবেন এবং সেই সাথে বিকাশ,রকেট,ব্যাংক বা সরাসরি চাইলেও পেমেন্ট করতে পারবেন ।

রহিম: তাহলে আমি বাংলাদেশি  প্রতিষ্ঠানের থেকে ডোমেইন, হোস্টিং নিবো, কম দামে ভালো মানের ডোমেইন, হোস্টিং দিবে সেই সাথে যে কোন সময় কোন প্রকার সমস্যায় পড়লে অতি দ্রুত সমাধান করে দিবে এমন কোন প্রতিষ্ঠানের সন্ধান দেন আমাকে।

আইটি এক্সপার্ট: বাংলাদেশে এখন অনেক ডোমেইন, হোস্টিং প্রতিষ্ঠান রয়েছে তাঁর মধ্যে আমাদের আইটি প্রফেশনালদের সবার প্রিয় প্রতিষ্ঠান হচ্ছে আইটি নাট হোস্টিং। আইটি নাট হোস্টিং কে স্পিড এর বস বলা হয়।

রহিম: আইটি নাট হোস্টিং থেকে ডোমেইন, হোস্টিং নিলে আমি কি কি সুবিধা পাবো?

আইটি এক্সপার্ট: 

  • প্রথমত অল্প দামে ডোমেইন, হোস্টিং পাবেন।
  • যে কোন ভাবে পেমেন্ট করতে পারবেন।
  • ওয়েব সাইটের অটো ব্যাকআপ পাবেন।
  • ডোমেইনের ফুল কন্ট্রোল প্যানেল পাবেন।
  • যে কোন সময় অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে ডোমেইন, হোস্টিং ট্রান্সফার / সুইচ করতে পারবেন।
  • ফ্রিতে এসএসএল সার্টিফিকেট পাবেন।
  • ২৪/৭ দিন কাস্টমার সাপোর্টে বন্ধু সুলভ আচরণ পাবেন।
  • ১০০% আপটাইম পাবেন।
  • সি প্যানেল হোস্টিং পাবেন।
  • লেটেস্ট টেকনোলজি SSD ও NVMe স্টোরেজ।
  • প্রিমিয়াম LiteSpeed ও nginx ওয়েব সার্ভার।
  • সিকিউর সার্ভার পাবেন আপনার ওয়েব সাইট যদি হ্যাক হয়ে যায় ফিরিতে আনতে সকল ধরণের সুবিধা পাবেন।
  • এছাড়া যে কোন ধরণের সমস্যাই তাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা পাবেন।

রহিম: কিভাবে তাদের থেকে ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনবো? ডোমেইন ও হোস্টিং কিনতে কি কি লাগবে?

আইটি এক্সপার্ট: কিচ্ছু লাগবে না, এখান থেকে সরাসরি চলে যান আইটি নাট হোস্টিং এর ওয়েব সাইটে তাঁরপর একটি একাউন্ট খুলে ফেলুন এবং আপনার বাজেট অনুযায়ী পছন্দ মতো ডোমেইন, হোস্টিং অর্ডার করে ফেলুন যদি সেটাও না করতে পারেন তাহলেও কোন সমস্যা নেই লাইভ সাপোর্টে অথবা ফোন নম্বরে কল করে তাঁদের বিস্তারিত বলুন তাঁরাই সব কিছু রেডি করে দিবে।

রহিম: ডোমেইন, হোস্টিং কেনার পর কি করবো?

আইটি এক্সপার্ট: ডোমেইন,হোস্টিং কেনা হয়ে গেলে আপনার একজন ওয়েব ডেভেলোপার এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে যে আপনার চাহিদা অনুযায়ী ব্যাকেন্ডে কোড লিখে ওয়েব সাইট কে ডায়ানামিক করে ফেলবে এবং সেই সাথে ওয়েব সাইটের সিকিউরিটি নিশ্চিত করবে। আপনার ওয়েব সাইট কে ডোমেইন হোস্টিং এ কানেক্ট করে হোস্ট করবে এছাড়া একটি ওয়েব সাইট রান করতে যা যা করতে হবে যাবতীয় কাজ করে দিবে এবং সব শেষে আপনার ওয়েব সাইট টি  ইন্টারনেট জগতে উনমুক্ত করে দিবে।

রহিম: আইটি এক্সপার্ট ভাই আপনার সুন্দর পরামর্শের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

রহিম আইটি এক্সপার্টের কথা মতো আইটি নাট হোস্টিং থেকে ডোমেইন, হোস্টিং কিনে নিলো তারপর একজন দক্ষ ওয়েব ডেভেলোপার দ্বারা ওয়েব সাইটের কাজটি সম্পন্ন করে ফেললো।

তো পাঠক আশা করি রহিম এবং আইটি এক্সপার্ট এর কথোপকথন এর মাধ্যমে আপনারা ক্লিয়ার একটি ধারণা পেয়ে গেছেন কিভাবে একটি ওয়েব সাইট তৈরি করা হয়। আজকের এই পর্ব এতটুকুই 

এর পরের পর্বে আমরা আলোচনা করবো বিশ্বের কয়েকজন সফল ওয়েব ডেভেলোপারদের নিয়ে। পরবর্তী পরর্বের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়ে আজকের মতো এখানেই বিদায়।

Leave a Comment