You are currently viewing শেয়ারর্ড হোস্টিং কি? কেন শেয়ারর্ড হোস্টিং ব্যবহার করবেন?

কোন ডিজিটাল পণ্য বা সেবাকে কাস্টমারের কাছে পৌঁছে দেওয়ার সবথেকে সহজ ও দ্রুতগতির মাধ্যম ওয়েবসাইট। এই ডিজিটাল যুগে ওয়েবসাইট ছাড়া সার্ভিস সেল দেওয়ার চিন্তা করা মাঝনদিতে ভরাডুবির মত। বর্তমান সময়ে পোর্টফলিও ওয়েবসাইট তৈরির পাশাপাশি জব, ইকমার্স, সার্ভিস সেলিং সহ সব ক্যাটাগরির ওয়েবসাইট তৈরি করে থাকে। 

ওয়েবসাইট তৈরির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো ডোমেইন, হোস্টিং। বিশেষ করে হোস্টিং সম্পর্কে প্রোপার জ্ঞান না থাকলে হিতে বিপরীত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই ওয়েবসাইট তৈরির আগে আমাদের হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া উচিত। হোস্টিং কিনতে গিয়ে নিশ্চয় ডেডিকেটেড, শেয়ারর্ড, ভিপিএস, ওয়ার্ডপ্রেস টার্গেটেড শব্দ গুলো শুনেছেন। আমাদের আজকের লেখায় আমরা শেয়ারর্ড হোস্টিং নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

শেয়ারর্ড হোস্টিং কি? 

শেয়ারর্ড হোস্টিং কি সে সম্পর্কে জানার আগে আমাদের হোস্টিং কি সে সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। হোস্টিং মূলত এক বা একাধিক কম্পিউটারের সমষ্টি। যার স্টোরেজ সুবিধা ব্যবহার করা হয় ওয়েবসাইটের ডাটা এবং রিসোর্স স্টোর করার জন্য। এই কম্পিউটারগুলো সারাক্ষণ ইন্টারনেটের সাথে কানেক্টেড থাকে। যাতে করে ইন্টারনেট ইউজ করে এসকল ডাটা ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে অ্যাক্সেস করা যায়।

সহজ কথায় বলতে গেলে ওয়েবসাইট ডাটা অনলাইনে স্টোর করে রাখার জন্য কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত স্টোরেজ সুবিধাকে হোস্টিং বলে। তো এখন অবশ্যই হোস্টিং কি সে সম্পর্কে ধারনা পেয়েছেন। আরো সহজ এক্সাম্পল দেই, আপনি এখন যে পোস্টটি পড়ছেন, তা বর্তমানে এরকম একটি সার্ভারে থাকা ওয়েবসাইট থেকে দেখতে পাচ্ছেন। 

হোস্টিং এর ধরন এবং কার্যক্ষমতার উপর নির্ভর করে এর দাম এবং নাম নির্ধারণ করা হয়। যেমন আমাদের এই লেখার মুল উদ্দেশ্য শেয়ারর্ড হোস্টিং সম্পর্কে বিস্তারিত জানা। তো শেয়ারর্ড হোস্টিং বাদেও আরও কয়েক প্রকার হোস্টিং সার্ভিস আছে। তবে আমরা আজকে শুধুমাত্র শেয়ারর্ড হোস্টিং সম্পর্কে জানার চেষ্টা করবো। 

মূলত শেয়ারর্ড হোস্টিং এর নাম থেকেই এই সার্ভিস সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়। আমরা জানি হোস্টিং হল কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক স্পেস, সিপিইউ এবং র‍্যাম ক্যাপাবিলিটির সমস্থি। শেয়ারর্ড হোস্টিং হলো এই সমন্বিত নির্দিষ্ট পরিমাণ রিসোর্স ইউজারদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া। 

যেমন ধরুন একটি সার্ভারে ১০ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক স্পেস, ১০ জিবি র‍্যাম এবং i3 প্রসেসর আছে। এখন আপনি এই সার্ভার থেকে ১ টেরাবাইট সার্ভার স্পেস বুক করলেন এবং এর পাশাপাশি আরও ৯ জন একই প্যাকেজ বুক করলো। তাহলে আপনারা সকলেই ১ টেরাবাইট করে হার্ডডিস্ক স্পেস পেলেন। তবে আপনি কিন্তু শুধু ১জিবি র‍্যাম ইউজ করতে পারবেন আর বাকি ৯ জিবি নয়জন আলাদা আলাদা ইউজার ইউজ করবে। এর পাশাপাশি আপনারা ১০ জন্যেই ওই একটি i3 প্রসেসর ইউজ করবেন। এখানে মূলত একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ রিসোর্স অনেকজন মিলে শেয়ারে ইউজ করার জন্য এই হোস্টিং প্যাকেজকে শেয়ারর্ড হোস্টিং বলা হয়। 

শেয়ারর্ড হোস্টিং কিভাবে কাজ করে?

শেয়ারর্ড হোস্টিং এর কাজ করার ধরণ অনেক সহজ। এই প্যাকেজের অনেক কিছুই অটোমেটিক হয়। এছাড়া হোস্টিং প্রোভাইডার শেয়ারর্ড হোস্টিং গুলো ম্যানেজ করে থাকে। যে কারণে এই প্যাকেজ ইউজ করা নতুনদের জন্য অনেক সুবিধাজনক। যাইহোক চলুন শেয়ারর্ড হোস্টিং কিভাবে কাজ করে তা জেনে নেই। 

আমরা ইতোমধ্যে জেনে গেছি যে হোস্টিং কি? এবং কিভাবে কাজ করে? তো শেয়ারর্ড হোস্টিং এ একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ রিসোর্স ইউজাররা নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে ইউজ করে। অর্থাৎ একটি সার্ভার স্পেস এবং রিসোর্স ইউজারদের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়। এতে ইউজারগণ স্পেস এবং রিসোর্সগুলো সমানভাগে ইউজ করে। 

বিশেষ করে ছোট বিজনেস বা পোর্টফলিও ওয়েবসাইটের জন্য এধরনের প্যাকেজ অনেক কমদামে পাওয়া যায়। যদিও এভাবে ওয়েবসাইটের পারফর্মেন্সে অনেক প্রভাব পরে কিন্তু অল্প দাম হওয়াতে মানুষ এই প্যাকেজ অনেক বেশি ব্যবহার করে। 

কেন শেয়ারর্ড হোস্টিং ব্যবহার করবেন?

উপরে বর্ণিত তথ্য থেকে অবশ্যই জানতে পেরেছেন যে Shared Hosting অনেক কম দামে পাওয়া যায়। এছাড়া এর মেইন্টেনেন্স খরচ নেই এবং ম্যানেজ করতে কোন টেকনিক্যাল নলেজ লাগে না। এসকল সুবিধা বাদেও অন্যান্য কিছু বিষয় আছে। 

Shared Hosting প্যাকেজ গুলো পারফেক্ট হয় ছোট বিজনেস, পোর্টফলিও এবং ব্লগিং এর জন্য। কারণ এসব ওয়েবসাইটের জন্য তেমন বেশি সার্ভার স্পেস প্রয়োজন পড়ে না। ১ জিবির একটি হোস্টিং নিলেই সেখানে পোর্টফলিও ওয়েবসাইট কোন ঝামেলা ছাড়াই হোস্ট করা যায়। 

১০ জিবির একটি হোস্টিং নিয়ে আপনি একটি স্টার্টআপ বিজনেসের ওয়েবসাইট অপারেট করতে পারবেন। তাহলে চিন্তা করে দেখুন এসব ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য হাজার ডলার খরচ করে টেরাবাইট স্পেস ইউজ করার কোন প্রয়োজন নেই। যদিও Shared Hosting এর সিকিউরিটি দূর্বলতা আছে তবুও ছোট ওয়েবসাইট অপারেট করার জন্য এটি সবথেকে উত্তম একটি মাধ্যম।   

শেয়ারর্ড হোস্টিং কোথায় থেকে কিনবো?

বর্তমানে প্রায় সব হোস্টিং কোম্পানিই শেয়ারর্ড হোস্টিং সেল করে থাকে। আপনি বিদেশী হোস্টিং কোম্পানি থেকে শেয়ারর্ড হোস্টিং প্যাকেজ কিনতে পারবেন অথবা দেশীয় হোস্টিং কোম্পানি থেকেও কিনতে পারবেন। বিভিন্ন সামাজিক এবং রাজনৈতিক অনুষ্ঠান বা বিশেষ দিনকে সামনে রেখে হোস্টিং প্রোভাইডাররা অনেক হোস্টিং অফার দিয়ে থাকে। 

সেখান থেকেও আপনি পছন্দের হোস্টিং প্যাকেজ কিনতে পারবেন। অন্যদিকে ব্ল্যাক ফ্রাইডে এবং সাইবার মানডে উপলক্ষে বিদেশী কোম্পানির সাথে সাথে দেশের কোম্পানি গুলোও অনেক আকর্ষণীয় অফার দিয়ে থাকে। বাংলাদেশের জনপ্রিয় হোস্টিং কোম্পানি itnuthosting এ শেয়ারর্ড হোস্টিং এর অনেক আকর্ষণীয় প্যাকেজ পেয়ে যাবেন। তবে যেখান থেকেই হোস্টিং কিনবেন তার আগে সেই কোম্পানির রেপুটেশন এবং রিভিউ দেখে নিবেন। কারণ অনেক অসাধু ব্যবসায়ী আপনাকে ঠকানোর চেষ্টা করবে।

উপরিউক্ত আলোচনায় আমরা শেয়ারর্ড হোস্টিং নিয়ে বিস্তারিত অনেক তথ্য জানতে পারলাম। আশাকরি নিজের ওয়েবসাইট তৈরি করার আগে উপরে বর্ণনা করা বিষয়গুলো গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করবেন। শেয়ারর্ড হোস্টিং সম্পর্কিত কিছু জানার থাকলে বা কোন মন্তব্য থাকলে অবশ্যই আমাদের জানাবেন ধন্যবাদ। 

Leave a Comment