আপনার প্রয়োজন এবং বাজেটের উপর নির্ভর করে, ছোট বা মাঝারি আকারের ওয়েবসাইটের জন্য শেয়ারড হোস্টিং বা VPS সার্ভারে যাওয়া উচিত। কেন আপনার শেয়ারড বা VPS সার্ভারে যাওয়া উচিত।

 শেয়ারড হোস্টিংঃ  আপনি যদি শুধু নিজের ব্যবসা বা পার্সোনাল ওয়েবসাইট শুরু করে থাকেন এবং বেশি রিসোর্স দরকার না হয় তাহলে আপনি শেয়ারড হোস্টিং নিতে পারেন। ওয়েবসাইটের ভিজিটর খুব কম সংখ্যক হলে তার জন্য শেয়ার্ড হোস্টিং-ই ভালো। শেয়ারড হোস্টিংয়ের জন্য একাধিক প্যাকেজ রয়েছে যেন ভিজিটর বেশি হলে সহজেই আপনি প্যাকেজ আপগ্রেড করতে পারেন।

তবে আপনার সাইটটি বৃদ্ধির সাথে সাথে এমন এক সময় আসবে যখন VPS হোস্টিংয়ে আপগ্রেডের প্রয়োজন হবে। শেয়ার্ড হোস্টিং সার্ভারে, অনেকগুলো ইউজার একই রিসোর্স ভাগ করে নেয়। ফলে, যদি কোন ইউজারের অ্যাকাউন্ট কম্প্রমাইজ হয়, তবে এর প্রভাবটি অন্য ইউজারদের কাছেও বাড়তে পারে। কোন ইউজারই খুব একটা আলাদা নয়। শুধুমাত্র একটা শেয়ার আইপির অধিনে সকল ইউজার যুক্ত থাকে। একজন ইউজার যদি হাই-রিসোর্স ব্যবহার করে তবে অন্যান্য ইউজারের উপর এর প্রভাব পরে।

VPS হোস্টিংঃ ভিপিএস হোস্টিং একটি Growing ওয়েবসাইটের জন্য প্রয়োজন যেখানে আপনার ওয়েবসাইটটিতে প্রতিদিনের অনেক ভিজিটর ভিজিট করে এবং আপনার একটি নির্ভরযোগ্য এবং সিকিউর সার্ভিস প্রয়োজন। ভিপিএস হোস্টিং একটি ডেডিকেটেড সার্ভারের সমস্ত সুবিধা প্রভাইড করে, যাতে আপনি সম্পূর্ণ ডাটা গোপন, অন্যান্য সার্ভার থেকে আলাদা, ডেডিকেটেড রিসোর্স, সার্ভার সিকিউরিটি বৃদ্ধি সহ আরও অনেক কিছু পাবেন। VPS সার্ভারগুলো আপানার পেইড করা রিসোর্সের সবগুলোই আপনাকে দেয়। হোস্টের একটি সার্ভার যদি কম্প্রমাইজ হয়ে যায় তবে এটি অন্য কোন সার্ভারের সিকিউরিটিকে প্রভাবিত করে না। আপনি সার্ভারের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ পান যাতে আপনি আপনার প্রয়োজন অনুসারে সার্ভারটি কাস্টমাইজ করতে পারেন।  

উপরে উল্লিখিত, VPS সার্ভার একটি ছোট বা মাঝারি আকারের ব্যবসায়ের জন্য উপযুক্ত যেখানে আপনার কিছু নিয়মিত ভিজিটর রয়েছে এবং কোন ডেডিকেটেড সার্ভারের জন্য টাকা ব্যয় করতে চান না।  আমাদের শেয়ারড বা VPS হোস্টিং সার্ভিস সম্পর্কে আপনার যদি আরও কোনো প্রশ্ন থাকে তবে লাইভ চ্যাট বা সাপোর্ট টিকিটের মাধ্যমে আমাদের জানাতে পারেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn